5G Vs ব্রডব্যান্ড (wifi) কোনটা লাভজনক ?

5G Vs ব্রডব্যান্ড (wifi) কোনটা লাভজনক ?

ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট তথা WiFi ব্যবহার করা বেশি লাভজনক, নাকি মোবাইল ফোন দিয়ে সেলুলার ডাটা প্যাকেট ইউজ করা লাভজনক? এই জিনিসটা এক কথায় প্রকাশ করা আসলেই খুব মুশকিল। বিশদ আলোচনার সুযোগ এখানে রয়েছে। তার পরেও চেষ্টা করব আপনাদেরকে এই বিষয়টা খুব ভালোভাবে বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য। কোনটা আসলে কি রকম বেনিফিট দেয়, কোনটাতে আসলে কি ধরনের সমস্যা আমরা ফেস করি.. লিমিটেড অফার-unlimited সহ বিভিন্ন ধরনের প্যাকেজ অফার…. এগুলোর মত কনফিউজিং বিষয়গুলো একদম পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে বুঝিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করব…

 

প্রথমেই আসি সেলুলার ডাটা প্যাকেজে। এটা হচ্ছে সহজ ভাষায় বলতে গেলে আমরা মোবাইল ফোন অথবা সিম মডেম এর মাধ্যমে বিভিন্ন মোবাইল অপারেটরদের ঘোষিত ইন্টারনেটের বিভিন্ন প্যাকেজ; যেমন ধরেন, 4gb 72 ঘণ্টা 76 টাকা বা 50gb 30 দিন 519 টাকা…. এই ধরনের যে প্যাকেজ গুলো আমরা কিনে থাকি, সেগুলো।

 

তো এই প্যাকেজগুলো মূলত আমরা মোবাইল ফোন অথবা মডেমের মাধ্যমে ল্যাপটপ বা পিসিতে ইউজ করি। সুবিধা তো বুঝতেই পারতেছেন, এক্সট্রিম পোর্টেবিলিটি। যেখানে যান পাহাড়ে জঙ্গলে নদী-নালায়, গ্রামেগঞ্জে। যেখানে আপনার মোবাইল যাবে সেখানে আপনি ইন্টারনেট পাবেন। হা, স্পিড, ল্যাটেন্সি এগুলো নিয়ে আপনার কমপ্লেন থাকতে পারে, কিন্তু পথে চলতে চলতে গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো সেরে নেয়ার জন্য মোবাইল ডাটার আসলে কোন বিকল্প নাই। এবং আপনি যত এমবিপিএসের ব্রডব্যান্ড লাইনই বাসায় ইউজ করেন না কেন, মোবাইল ডাটা প্যাকেজ আপনার অবশ্যই দরকার হবে। চলতে চলতে মেসেঞ্জার অথবা হোয়াটসঅ্যাপর কিছু গুরুত্বপূর্ণ চ্যাটিং অথবা ধরেন ইমেইল ইত্যাদি সেরে নেওয়ার জন্য … এই সেলুলার ডাটা প্যাকেজ কিন্তু আমাদের দরকার হয়।

 

এই পোর্টেবিলিটির ব্যাপারটা যেমন এটার একটা ব্রাইট সাইট। ঠিক তেমনি অতিরিক্ত মাত্রার খরচ কিন্তু এটার একটা নেগেটিভ সাইট। যেমনটা একটু আগে একটা প্যাকেজ এর উদাহরণ দিতে গিয়ে বললাম যে 50Gb 30 দিন 519 টাকা। আপনি যদি একজন ব্রডব্যান্ড ইউজার হন, ক্যান ইউ বিলিভ দিস? এমনও লোক আছে যে ব্রডব্যান্ড দিয়ে দিনে 50 জিবির ও বেশি ডাউনলোড আপলোড করে। তাও আবার মাসে 500- 600 টাকা দিয়া।

 

যাই হোক, আমরা সেলুলার ডাটা প্যাকেজে ফেরত আসি। এখন এটার সিস্টেমটা কি একচুয়ালি। আমরা জানি ওয়ার্ল্ডওয়াইড ইন্টারনেট বিক্রি হয় ব্যান্ডউইথ হিসাব করে, ডাটা হিসাবে না। আরেকটু সহজ করে উদাহরণ দিয়ে বলি… ধরেন আপনার বিল্ডিং এর ছাদে যে পানিট্যাঙ্কি টা আছে, ওখান থেকে প্রত্যেকটা ফ্ল্যাটে এক ইঞ্চি পাইপ দিয়ে সবার বাসায় পানির লাইন দিয়েছেন। এখন এই এক ইঞ্চি পাইপ দিয়ে এক ইঞ্চি সাইজেই কিন্তু পানিটা আপনাদের বাসা পর্যন্ত চলে যাচ্ছে। এখন পাইপ এর সাইজ যদি আপনি এক ইঞ্চি জায়গায় দুই ইঞ্চি করেন তাহলে দুই ইঞ্চি হিসেবে পানি যাবে। আপনি আগে এক ইঞ্চি পানির পাইপের ভাড়া দিতেন এখন দুই ইঞ্চি পানির পাইপের ভাড়া দেবেন। 1 ইঞ্চি পানির পাইপের থেকে দুই ইঞ্চি পানির পাইপে পানি বেশি আসবে, তাই তার ভাড়াও বেশি হবে।

 

তো এখানে পাইপটা হচ্ছে আপনার ব্যান্ডউইথ। আর পানি কে আপনি ডাটা হিসেবে কল্পনা করেন। তার মানে হচ্ছে ব্যান্ডউইথ দিয়ে ব্যান্ডউইথের যে সাইজ, সেই পরিমাণ ডাটা একসঙ্গে আসতে পারবে। এখন ইন্টারনেট সেলের যে প্রক্রিয়া অল ওভার দ্য ওয়ার্ল্ড, সেটা হচ্ছে অলওয়েজ পাইপ অর্থাৎ ব্যান্ডউইথের এর সাইজ বিক্রি হয়; ডাটা কিন্তু সেল হয় না।

 

একই ভাবে আপনি আপনার বাসাতে যে ব্রডব্যান্ড লাইন চালান সেখানে কিন্তু আপনি ISP এর কাছ থেকে ব্যান্ডউইথের এর সাইজ কেনেন, ডাটা না। আপনার যদি প্রতি সেকেন্ডে আরো বেশি ডাটার দরকার হয় তাহলে আপনি আইএসপিকে বলে ব্যান্ডউইডথটা মোটা করে নেবেন। তাহলেই দেখবেন যে প্রতি সেকেন্ডে ডাটা আসার পরিমাণটা বেড়ে গেছে। এভাবে করে আপনি সারা মাস চালিয়ে ব্যান্ডউইডথ নামক পাইপের ভাড়াটা দিয়ে দেবেন।

 

মোবাইল ডাটা প্যাকেটের ক্ষেত্রে হয় ঠিক তার উল্টো। এখানে আপনারা পাইপ কেনেন না, কেনেন পানি। অর্থাৎ ব্যান্ডউইথ এর সাইজ কেনেন না, কিনেন ডাটার সাইজ। আপনি কত টাকায় কতটুকু ডাটা পাবেন সেটা মোবাইল কোম্পানিগুলো ডিসাইড করে দেয় এবং ওই ডাটা আপনি কতদিন ধরে খরচ করতে পারবেন সেটাও ডিসাইড করে দেয়।

 

এক্ষেত্রে ব্যান্ডউইথের সাইজটা নির্ধারিত হয় আপনি মূলত 3G তে আছেন নাকি 4G তে আছেন তার উপরে। আগামী বছরের মার্চের দিকে হয়তো বা 5G র নিলাম শুরু হয়ে যেতে পারে। তখন আপনারা 5G র ব্যান্ডউইথ পাবেন….এবং সেটা মোটামুটি 20Gbps এর কাছাকাছি। তার মানে হচ্ছে এই যে আপনি তখন যে ডেটা প্যাকেজ টা কিনবেন সেটাই 20Gbps ব্যান্ডউইথের মাধ্যমে আপনার কাছে আসবে। এবং এখন 4G র ল্যাটেন্সি হচ্ছে অলমোস্ট 65ms, 5G তে সেটা নেমে আসবে প্রায় 5ms এ, যেটা কিনা ব্রডব্যান্ড এর ক্ষেত্রে স্বপ্নেও চিন্তা করা যায় না। যদিও 3G এবং 4G এক্সপেরিয়েন্স কখনোই অতটা সুখকর ছিলো না আমাদের দেশে। দেখা যাক কি হয়। অনেকে মজা করে বলে যে, 5G আসলে অন্ততপক্ষে 4G র স্পীডটা হয়তো ঠিকমতো পাওয়া যাবে।

 

যাহোক, আপনি প্রতিমাসে কিরকম ডাটা খরচ করেছেন সেটার সঙ্গে যদি একটা কম্পারিজন করেন তাহলে দেখবেন যে সেলুলার ডাটা কানেকশন অনেক বেশি কস্টলি থাকে ব্রডব্যান্ড কানেকশন এর তুলনায়, যদিও সেলুলার ডাটা প্যাকেজ এ আপনার হিউজ পোর্টেবিলিটি থাকে। ওপর দিকে ব্রডব্যান্ডের পোর্টেবিলিটি হচ্ছে কেবলমাত্র ওয়াইফাই রেঞ্জ এর মধ্যে। তারপরেও, ব্রডব্যান্ড এ আপনি সারা মাস ব্যাপী অলমোস্ট আনলিমিটেড ডাটা খরচ করতে পারবেন।

এখন কথা হচ্ছে যে ডাটার পরিমাণ এত কম থাকা সত্ত্বেও প্রাইস কেন এত বেশি থাকে। দেখেন তাদেরকে আপনার গভমেন্ট এর কাছ থেকে নিলামের মাধ্যমে কিন্তু স্পেকট্রাম কিনতে হয়। নতুন 5G আসতেছে সেটাও ডেফিনেটলি কিনতে হবে। এখানে কিন্তু ইনিশিয়াল একটা হিউজ ইনভেস্টমেন্টের ব্যাপার স্যাপার আছে। তাদেরকে বিভিন্ন জায়গায় টাওয়ার সেটআপ করতে হচ্ছে জমি কেনা লাগতেছে বিল্ডিং এর ভাড়া দিতে হচ্ছে। টাওয়ারের ভাড়া দিতে হচ্ছে, কাস্টমার কেয়ার সার্ভিস চালু রাখতে হচ্ছে। এগুলোর পয়সা তারা আপনার কাছ থেকে নেয়। তাদের এই যে বিশাল সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্ট… এটা করার জন্য কিন্তু হিউজ পরিমান পয়সা দরকার। এটাও তারা আপনার কাছ থেকে নেয়। এবং বছর বছর বিজ্ঞাপনের জন্য তারা যে বিশাল অংকের একটা অ্যামাউন্ট খরচ করতেছে… সেটাও আপনার কাছ থেকেই নিচ্ছে।

যখন তারা থ্রিজি থেকে ফোরজিতে আসলো তখন কিন্তু তাদের সেটআপ টা চেঞ্জ করতে হইছে। 4G থেকে এখন 5G তে যাবে সেখানে তাদেরকে একটা ইনিশিয়াল সেটআপ কস্ট বহন করতে হবে। এই সমস্ত পয়সাও তারা আপনার কাছ থেকে প্যাকেজ বিক্রিই করে নেবে।

অপরদিকে, ব্রডব্যান্ডের কস্টিং তারপর কাস্টমার সার্ভিস, নেটওয়ার্ক ছড়িয়ে দেওয়ার পদ্ধতি এগুলো সবই আপনারা জানেন। তাই, সেলুলার ডাটা কানেকশন এ কস্ট বৃদ্ধি পাওয়ার যথেষ্ট কারণ রয়েছে।

সুতরাং সেলুলার ডাটা এবং ব্রডব্যান্ড কানেকশন দুইটাতেই আপনার সুবিধা অসুবিধা রয়েছে। প্রথমটা হচ্ছে একদম এক্সট্রিম পোর্টেবল, কিন্তু লিমিটেড ডাটা এবং খরচ বেশি। আর ব্রডব্যান্ড হচ্ছে একেবারেই অল্প পরিসরে পোর্টেবল, অলমোস্ট আনলিমিটেড ডাটা, এবং খরচ অত্যান্ত কম।

I guess, আপনাদের দুইটাই লাগবে দুইটাই আসলে দরকার, দুইটারই আলাদা আলাদা মেরিট অফ ইউজ রয়েছে। আপনি যখন বাসাবাড়িতে এবং অফিসে যতক্ষণ থাকবেন, অবশ্যই ব্রডব্যান্ড… আর যখন on the way, তখন অবশ্যই ডাটা প্যাকেজের কোনো বিকল্প নাই।

 

Total solution plus:

Total Solution Plus-Best Computer, Laptop & Gadget Shop in Bangladesh.Technology has now become our constant companion. Bangladesh is not lagging behind with time. Our Total Solution Plus is a trusted company in our country. We ensure the right price for our consumers. In the midst of all this busyness, our company Total Solution Plus provides their maximum service for proper safety and quality of products. Our goal is to gain consumer loyalty and provide quality products.

 

Best Computer, Laptop & Gadget Shop in Bangladesh

Technology has become a part of our daily lives and for a huge portion of our life, we are dependent on tech products daily. There is hardly a home in Bangladesh without a tech product. This is where we come in.Total Soution Plus had started as a Tech product shop way back in june 2008. We focused on giving the customers the best service possible. This is why Total Sloution plus is one of The most trusted names in the tech industry of Bangladesh today.

কখন বুঝবেন আপনার রাউটার বদলানোর সময় হয়েছে? When it’s time to upgrade Your Router?
রাউটারে কয়টা এন্টিনা থাকলে ভালো হয়?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Categories
Products
My Cart
Wishlist
Recently Viewed
Categories